কলকাতা মহানগরী












ভাল লাগে আমার
বাজার করতে,
মুকুন্দপুরের সেই বাজার,
ছোট ছোট দোকানে,
সাজিয়ে রাখা আনাজ,
মসৃণ বেগুন আলু পেয়াজ,
জ্বলছে টিম টিম করে,
তবে কেরোসিন নয়কো,
সতেজ আলো ইলেক্ট্রিকের।

দড়াদড়ি আছে এখনো,
মিষ্টিসুরে,ধিমি বায়না,
তবে হা,পেলাম চা
মাটির খুড়িতে একটাকা।

সারি সারি দোকান পাট,
হাড়ি কলসি জামা শাড়ি,
নতুন বিক্রি,পুরানো খাট,
খরিদ্দার সবাই যায়,
লুঙ্গী গেঞ্জি, টি শার্ট জিন্স,
জুতা চটী খরম পায়
ডুরেশাড়ি ,স্কারট পড়া teenস।

নিরীহ নিলিপ্ত মানুশ অগুন্তি,
খুজে বেড়ায় খুশী আপন জীবনে,
পরিবর্তনের জোয়ারে আশা করে শান্তি
কনক্রিট জন্মায় গতকালের ধানের ক্ষেতে।

মানুশ কিন্ত আছে একই,
বাসে ভীড়,রাস্তা লোকারণ্য,
কলকাতা মহানগরী,
সত্যজিতের জনঅরন্য।।
Advertisements

life

life is so funny,
You care much and they leave,
one by one.

You love one,
she misunderstands,
turning love into stone.

Could not make her believe,
the tide came so naturally,
the good person inside thee,
only beckoned me.

I see you hiding pains
deep in thee,
then you flash a smile,
whenever and wherever it be.

I  believe,oneday
She would feel for me.
She is such a good person,
just cannot stop loving thee.

চলতে গিয়ে

সমুদ্রের তীর ধরে আমরা সবাই,
জীবনের রাস্তা দিয়ে হেঁটে চলে যাই,
কুঁড়িযে তুলি ঝিনুক শঙ্খ প্রবাল,
ভাল মুহুর্তগুলিতে একই খেয়াল।

ঢেউয়ের তালে তালে চলতে গিয়ে,
কখন  চলে গেছি অনেক দূরে,
একেলা আমি ,থমকে থামি,
অনেক দূরে তোমরা আছ,
সংসার খেলা খুশিতে খেলছ,
ভুল তখনই বুঝতে পারি,
বাকি আছে খেলার শেষ ঘন্টা খানি,
ধীরে ধীরে তাই সরে আসি,
আমার পথ যে গেছে বেঁকে
অনেক আগে অনেকখানি।