স্লেট

তোমার আমার পরিচয়,
বহুযুগ ধরে,
তুমি মানো বা না মানো
এই চিন্তাধারা চলেছে।
তুমি যখন বই পড়,
উপুর হয়ে চোখে চশমা,
বইয়ের পাতার লাইন ধরে,
একটার পরে একটা অক্ষর,
পড়ে যাও সময় করে,
আমি তোমার মনের ভিতর,
কালো স্লেট,
লিখে যাও অক্ষর গুলি,
তৌরী হয় শব্দ,
তারপরে তার অর্থ বোঝ তুমি।
আমি দেখি তুমি হাস,
কখনো মন হয় বিষাদ,
আমি সেই স্লেট,
বুঝি তোমার চিন্তন,
তারপরেই তুমি আচল দিয়ে,
মুছে দাও লেখা গুলি,
নতুন করে কিছু ভাবনা লেখার,
আমি কালো, তাই তুমি যা বল,
আমি সব শুনি পুরোটাই,
তোমার সাথে আমি হাসি কাদি,
আমি যে তোমার মনের আধখানা টাই,
তাই বলি আমি ছিলাম গতকাল,
আমি আছি এখন,
আমি থাকব আগামীকাল,
সবসময়, তোমার সাথে,
তুমি মানো বা না মানো,
আমি তোমার মনের স্লেট।।

Advertisements

শেষ পাতাটি

পাছে তোমায় ফেলি ছুয়ে,
তাইতো সদা দূরে থাকি,
ভুলে কিছু দিলে প্রিয়ে,
আপন করে তুলে রাখি।

তোমার বাগানে আছে সাজানো,
গোলাপ, বেলি, জুই, দোপাটি,
তারই মাঝে এসেছি কখনো,
আমি এক অজানা আগাছাটি।

দেখি তোমায় রোজ সকালে,
স্নানটি করে শুভ্র বসনে,
এসে দাঁড়াও গোলাপের সামনে,
ভালবাসাটি দাও উজাড় করে।

আপন মনে গুনগুনিয়ে
কাকনের তালের বোলে,
মন ভোমরার গানের সুরে,
ভিজিয়ে দিলে সেই জনেরে।

পড়ল যদি কিছু ছিটেফোঁটা,
আমার ‘পড়ে দূরে থেকে,
পাপড়ির গভীরে রইলো জমা,
আচলে কখনো নিয়ো গো তুলে।

আমার ভালবাসাতে নাই চঞ্চলতা,
নাই এতে সুবাস রঙের বাহার,
পথ তোমার শুধু মসৃণের আশা,
শেষ পাতাটি বিছিয়ে দেবার।